রাখা হয়নি রিজার্ভ ডে

এখন কী বৃষ্টির জন্য প্রার্থনা করতে হবে। হতাস। অনেক হতাস। 

বৃষ্টির আশঙ্কা মাথায় রেখে ভারতের বিপক্ষে সিরিজে প্রত্যেকটি ম্যাচের এক দিন করে ‘রিজার্ভ ডে’ রাখা হয়েছিল। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজে কোনো রিজার্ভ ডে নেই। অর্থাৎ খেলা আজ কমপক্ষে ২০-২০ করে ৪০ ওভার পর্যন্ত গড়ানো না গেলে ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়ে যাবে।দক্ষিণ আফ্রিকা যেহেতু র‍্যাঙ্কিংয়ের দুই নম্বর দল, তাদের বিপক্ষে একটি জয় বাংলাদেশের জন্য বেশ কিছু পয়েন্ট পাওয়ার সুযোগ। সেদিক দিয়ে দেখলে এই সিরিজে রিজার্ভ ডে রাখা উচিত ছিল বিসিবির। বিশেষ করে তিন ম্যাচের একটিতে জিতলে যেখানে বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে অংশ নেওয়া নিশ্চিত হয়ে যায়। এক হিসাবে তাই বৃষ্টিতে একেকটি ম্যাচ ভেসে যাওয়া বাংলাদেশের জন্য ক্ষতিরই। তবে পুরো সিরিজই যদি বৃষ্টিতে ভেসে যায়, র‍্যাঙ্কিংয়ের হিসাবে বাংলাদেশের লাভই হবে। তখনো চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলা নিশ্চিত হয়ে যাবে বাংলাদেশের।কিন্তু বাংলাদেশ নিশ্চয়ই প্রকৃতির দিকে তাকিয়ে থাকতে চায় না। নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণই দিতে চায় পাকিস্তান-ভারতকে সিরিজ হারানো মাশরাফি বিন মুর্তজার​ দল। তা ছাড়া দর্শকেরাও মাঠের খেলা উপভোগ করার জন্য মুখিয়ে আছেন। ভারতের বিপক্ষে রাখা হলেও এবার কেন রিজার্ভ ডে রাখা হয়নি, এ ব্যাপারে বিসিবির বক্তব্য জানতে চাওয়া হলে প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ‘ছয় মাস আগে যখন দুই বোর্ড এই সিরিজের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়, তখন রিজার্ভ ডের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। আসলে ভারত খুবই সংক্ষিপ্ত সফর করেছিল। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকা পূর্ণ সফরে এসেছে বাংলাদেশে। খুব কম সময়ের মধ্যে অনেকগুলো ম্যাচ। মাঝখানে বিরতিও নেই খুব বেশি। এ কারণে রিজার্ভ ডে রাখা সম্ভব হয়নি।’অবশ্য এই প্রতিবেদন লেখার সময় একটা সুখবর মিলেছে। মিরপুরে পুরোপুরি থেমেছে বৃষ্টি। সরিয়ে ফেলা হয়েছে কাভারও। প্রকৃতি আবার বাগড়া না দিলে টস করার জন্য নেমে পড়বেন দুই অধিনায়ক।

Source: রাখা হয়নি রিজার্ভ ডে